পরিবেশ নিয়ে উচ্চশিক্ষা, গবেষণা, জানার নানা সুযোগ

বৈশ্বিক নানা কারণে পরিবেশ নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ বাড়ছে। গবেষণার পরিসরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, পরিবেশ ব্যবস্থাপনা, প্রাকৃতিক সম্পদ ব্যবস্থাপনাসহ নানা বিষয়ের প্রতি আগ্রহী হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। জেনে নেওয়া যাক পরিবেশসংক্রান্ত পড়ালেখা, বৃত্তি কিংবা সম্মেলন ও কর্মশালায় অংশ নেওয়ার সুযোগগুলোর খবর।

দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবেশ ও পরিবেশসংক্রান্ত ব্যবস্থাপনা বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার সুযোগ আছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অনুষদের অধীন ভূগোল ও পরিবেশ, ভূতত্ত্ব, সমুদ্রবিজ্ঞান, দুর্যোগবিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা এবং আবহাওয়াবিদ্যা নিয়ে পড়ার সুযোগ আছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে পেশাজীবীদের জন্য এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টে উইকেন্ড মাস্টার্স প্রোগ্রাম চালু আছে। পরিবেশ ও জলবায়ুবিষয়ক নানা বিষয়ে পড়তে পারেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বন ও পরিবেশবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধীনেও।

ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশের (আইইউবি) স্কুল অব এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টে ভূমি ও পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা এবং পরিবেশ ব্যবস্থাপনায় স্নাতক, স্নাতকোত্তর করা যায়। এ ছাড়া বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস, স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজিসহ অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন পরিবেশসংক্রান্ত বিষয়ে পড়ানো হয়।

ঢাকার ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক হামিদুল হক বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশের নানা সংকটের কারণে অনেক রকম ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। প্রাতিষ্ঠানিকভাবে গবেষণা ও শিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা জলবায়ু পরিবর্তনের আগ্রাসী প্রভাব ও পরিবেশ সুরক্ষার নানা কৌশল শিখতে পারছেন। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের এ নিয়ে গবেষণা ও উচ্চশিক্ষার সুযোগ অনেক বিস্তৃত। পরিবেশ নিয়ে পড়াশোনা শেষ করে নানা উন্নয়ন ও গবেষণা সংস্থায় শিক্ষার্থীরা চাকরির সুযোগ পাচ্ছেন।

ঢাকার নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে পরিবেশবিজ্ঞান ও পরিবেশ ব্যবস্থাপনা নিয়ে পড়ার সুযোগ আছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির সহকারী অধ্যাপক ও পরিবেশবিদ শওকত ইসলাম বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তন, পরিবেশ নীতিমালা, ব্যবস্থাপনাসহ নানা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আমরা শিক্ষার্থীদের পড়াই। পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা, বায়োডাইভারসিটিসহ বাংলাদেশ ও বিশ্বের নানা ইস্যু নিয়ে শিক্ষার্থীরা জানতে পারছেন। পরিবেশ নিয়ে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের দারুণ সব গবেষণার সুযোগ আছে। জলবায়ু ও পরিবেশগত ঝুঁকি যেহেতু বাংলাদেশের অনেক বেশি, তাই এখানে গবেষণা ও ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ বাড়ছে। বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে চাকরি থেকে শুরু করে উচ্চশিক্ষার জন্য দেশের বাইরে বৃত্তি নিয়ে পড়ার সুযোগ পাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।’

সূত্র : প্রথম আলো